অনলাইন ইনকামফ্রিল্যাসিং

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় – Online Taka Income 2023

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করা যায় এটা হয়তো অনেকেই জানেন না। শখের জন্য ফটোগ্রাফি করেন তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেল।

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করা যায় এটা কি আপনি জানতেন? আপনার হাতের মোবাইল ফোন দিয়েই ফটোগ্রাফি করে টাকা আয় করা সম্ভব। কিছু দিন আগেই মানুষ ফটোগ্রাফি করে টাকা আয় করার জন্য অনেক দামি ক্যামেরা কিনত। কিন্ত বর্তমান সময়ে আপনি চাইলে আপনার হাতের মোবাইল দিয়ে ফটোগ্রাফি করে আয় করতে পারবেন।

হ্যা, আজ আমরা জানবো মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার উপায় সম্পর্কে। আমি আপনাকে গেরান্টি দিচ্ছি আপনি যদি এই আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়েন আপনি অন্য সবার মতো টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

শুধু যে মোবাইল দিয়ে ফটো তুলবেন তা নয় আপনি এডিটিং, ফটো আপলোড সব কিছুই মোবাইল ফোন দিয়েই সহজেই করতে পারেন।

এই আর্টিকেল এ এমন কিছু ওয়েবসাইট আপনাদের দেখাবো যেখানে আপনি খুব সহজেই মোবাইল ফোন দিয়ে ছবি তুলে আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এবং সেই সব ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে ছবি sell করে taka income করতে পারবেন।

যেহেতু আপনার তোলা ফটো কেউ একজন কিনে নিবে এই জন্য আপনার ফটো অনেক সুন্দর হওয়া চাই। অন্য সবার থেকে আলাদা ছবি উঠাতে হবে আপনাকে। একটা সাধারন ফটো কে অসাধারণ ভাবে তুলে ধরতে হবে তার জন্য মোবাইল দিয়ে ছবি তোলার নিয়ম গুলো জেনে নিন।

 

Table of Contents

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় কত টাকা আয় হবে

যেহেতু এটা মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার বিষয়টা সম্পূর্ণই আপনার দক্ষতার উপর নির্ভর করবে তাই আপনি কত টাকা income করতে পারবেন সেটা বলা যায় না। আপনি যদি মনোযোগ দিয়ে কাজ টা করেন তাহলে মাসে 500 ডলার ইনকাম করা তেমন কঠিন কোন ব্যাপার হবে না। প্রথম দিকে যে আপনি 500 ডলার ইনকাম করবেন সেটা ভেবে বসবেন না যেন।

আপনাকে কাজ করে যেতে হবে। প্রতিদিন নতুন কিছু শিখতে হবে। skill অর্জন করতে হবে তাহলেই একদিন আপনি 500 কেন হাজার ডলার ইনকাম করতে পারবেন। মনে রাখবেন ফটোগ্রাফি বা মোবাইল ফটোগ্রাফি একটা আর্ট এটা একদিনে হবে না। আপনাকে পরিশ্রম করে যেতে হবে।

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার উপায়:

মোবাইল দিয়ে ফটো তুলে সেই ফটো সেল করে টাকা আয় করার জন্য সব থেকে ভালো সাইট গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। আপনার যেই সাইট এর সাথে কাজ করতে ভালো লাগবে সেই সাইট এর সাথে কাজ করবেন।

 

Foap – মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয়

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার জন্য অনেক popular একটা সাইট হলো foap.com । এটা সেই সাইট যেখানে আপনি আপনার মোবাইল দিয়ে তোলা ছবি sell করতে পারবেন।

আপনার মোবাইলে foap app ডাউনলোড করে নিতে পারেন। খুব সহজে ফটো আপলোড করার জন্য অথবা ইনকাম করা টাকা দেখার জন্য google play Store থেকে app ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

 

অ্যাপ ইন্টারফেস:

Foap এর ওয়েবসাইট ও অ্যাপ ব্যাবহার করা খুব সহজ। এটা এমন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে কেউ খুব সহজে বুঝতে পারবে। যে কোন বয়সের মানুষ এটা সুন্দর করে ব্যাবহার করতে পারবে।

Android ও ISO দুই ফোনের জন্যই অ্যাপ খুব সুবিধাজনক। তাই যে কেউ খুব সহজেই ব্যাবহার করতে পারেন FOAP এর ওয়েবসাইট।

টাকা আয় করতে পারবেন:

এটা এমন একটা ওয়েবসাইট যেখান থেকে খব সহজেই আপনি মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে পারবেন। আজকের এই আর্টিকেল এ আপনি FOAP টাকা ইনকাম করার সাইট সম্পর্কে সব info পেয়ে যাবেন। আপনার মোবাইলে তোলা ছবি বিক্রি করার ক্ষেত্রে এই সব তথ্য সাহায্য করবে।

অনেক brand, agency এবং business আছে যারা এই সব ছবি তাদের ডিজাইন বা ব্রান্ডে ব্যাবহার করে। যখনই আপনার ছবি কোন প্রতিষ্ঠানের পছন্দ হবে তখন তারা আপনার ছবি নিয়ে নিবে তার বিনিময়ে আপনি টাকা পাবেন। এভাবেই আপনার ইনকাম হতে থাকবে।

 

একাউন্ট তৈরি করা:

এই সাইট এ একাউন্ট তৈরি করা একদম সোজা কাজ। আপনার মোবাইল ফোন থেকে google এ সার্চ করুন foap এর পর ওয়েবসাইট এ গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। ইমেইল দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করার পর আপনার email এ একটা মেইল যাবে সেটাতে ক্লিক করে active করে দিলেই হলো।তার পর পাসওয়ার্ড সেট করলেই আপনার একাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে।

একাউন্ট তৈরি করার পরে আপনাকে আপনার প্রোফাইল সুন্দর করে সাজাতে হবে। আপনার প্রোফাইল প্রফেশনাল ভাবে সাজানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে সুন্দর সব ছবি তুলতে হবে।

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার জন্য সব থেকে ভালো সাইট হলো এটা। আপনি ইনকাম করতে চাইলে এর interface দেখে আসুন।

 

কিভাবে foap থেকে মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে পারবেন?

এই সাইট থেকে ইনকাম করার জন্য আপনার সামনে দুইটা option আছে। option দুইটা হলো:

1. ফটো সেল করে

: মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার জন্য আপনার ফটো আপলোড করবেন এই সাইটে। কোন buyer এর যখনই আপনার ফটো পছন্দ হবে বা আপনার ফটো কিনবে তখন আপনাকে 50% দেওয়া হবে।

ধরুন আপনার ফটোর price 4 ডলার আপনি পাবেন 2 ডলার আর foap তার কমিশন হিসেবে 2 ডলার নিয়ে নিবে।

এই সাইট এর সব থেকে সুবিধাজনক কারণ হলো আপনি যে ফটো এই সাইটে আপলোড করছেন সেই একই ফটো চাইলে অন্য সাইটেও আপলোড করতে পারবেন। অন্য সাইটে আপলোড করে sell করতে পারেন বা আপনার যদি নিজের ওয়েবসাইট থাকে তাহলে সেখান থেকেও ঐ একই ফটো সেল করতে পারবেন।

2. প্রতিযোগিতা করে আয়

এই সাইটে বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। আপনার ফটো দিয়ে আপনি প্রতিযোগিতায় জিতে নিতে পারলেই আপনি 100 ডলার পুরস্কার পাবেন।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য আপনাকে কয়েন ব্যাবহার করতে হবে। কয়েন নেওয়ার জন্য আপনাকে কয়েক সেকেন্ড ad দেখতে হবে।

Foap সম্পর্কে বিস্তারিত:

এই সাইটে ফটো আপলোড করার জন্য কোনো টাকা খরচ করতে হয় না। এবং এটা ব্যবহার করা খুব সহজ। foap এর কমিউনিটি অনেক বড় এবং সবাই খুব helpful যে কোন সমস্যার সমাধান পেতে পারেন। আপনি যে কোন সমস্যায় পড়লে youtube এ সার্চ করে ভিডিও দেখতে পারেন।

আপনার মোবাইল ফোন দিয়ে তোলা ছবি সবার সামনে নিয়ে আসার জন্য সব থেকে ভালো মাধ্যম হলো এটা।

Foap এর সমস্যা

যেহেতু এখানে অনেক competition হয় এই কারণে এই সাইটে অনেক প্রফেশনাল মোবাইল ফটোগ্রাফার / ফটোগ্রাফার আছে যাদের সাথে competition করে প্রথম দিকে ভালো করা একটু কঠিন হয়। মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে চাইলে তো এই টুকু কষ্ট করে সামনে আগাতে হবে।

Read More: ছাত্রদের টাকা আয় করার উপায়

Eyeeme – মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয়

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার অনেকের মতে সেরা ওয়েবসাইট এটা। creative photo শেয়ার করার মিডিয়া হিসেবে সবার কাছে পরিচিত নাম এটা। এবং ফটো বিক্রির মার্কেট প্লেস হিসেবে সবাই এটাকে জানে। আপনার কম্পিউটার না থাকলেও মোবাইল দিয়ে খুব সহজেই ব্যাবহার করতে পারবেন।

আপনি যদি মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে চান তাহলে এই সাইটের সাথে কাজ করতে পারেন। কারণ এই সাইটের সব প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার Community এর সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

App ইন্টারফেস-

Eyeeme এর মোবাইল অ্যাপ ইন্টারফেস খুব সহজ ও smooth. এটা এমন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে খুব সহজেই যে কেউ ব্যাবহার করতে পারে। Eyeeme অ্যাপ ব্যাবহার করা তুলনামূলক ভাবে সব থেকে সহজ ও সুন্দর।

Android ও ISO দুইটা অ্যাপ খুব সুন্দর করে ডিজাইন করা। আশা করি আপনার ডাউনলোড করে ব্যাবহার করতে কোনো সমস্যা হবে না।

টাকা আয় করতে পারবেন:

একজন ক্রেতা বা একজন বিক্রেতা হিসেবে আপনি একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। আপনি একাউন্ট তৈরি করার জন্য google play Store থেকে Eyeem অ্যাপ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন অথবা ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন।

আপনি যেহেতু ছবি বিক্রেতা হিসেবে এই টাকা ইনকাম ওয়েবসাইটে একাউন্ট করবেন তাই আমি ঐ ভাবেই কথা বলছি। আপনার যে কোন ফটো আপলোড করার পরে সেটা রিভিউ করা হবে।

আপনার ছবি যখনই approve করা হবে তখনই সবাই আপনার ছবি Eyeem তে দেখতে পাবে। তখন থেকেই আপনার ছবি বিক্রি হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। আপনার ছবি যে আপলোড করার পরেই sell হওয়া শুরু হবে এমন কোন গ্যারান্টি নেই। আপনার একটা ফটো যে কয় বার sell হবে সেটাও বলা যায় না। দেখা গেল কোন একটা ফটো বেশী sell হচ্ছে আবার ওর থেকে ভালো ছটো কম sell হচ্ছে।

এই ওয়েবসাইটে মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার ক্ষেত্রে বিরাট একটা সুযোগ তৈরি করেছে। এই কারনেই আমি বলবো আপনি যদি মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই আজ থেকে best quality ফটো তোলা শুরু করুন। আর Eyeem এ আপলোড করতে থাকুন।

 

একাউন্ট তৈরি করা:

একাউন্ট তৈরি করতে চাইলে আপনি দুইটা অপশন পাবেন। একটা হলো “Upload and sell your work” এখানে একাউন্ট করে আপনি ফটো আপলোড করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আর অন্যটি হলো “Buy Stock Photos” এখানে একাউন্ট করে creative photo কিনতে পারেন। এটা আমাদের জন্য নয়। আমরা প্রথমটা তে একাউন্ট তৈরি করবো।

Email এবং password দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে হবে। এর পরে ভেরিফাই করতে হবে। একাউন্ট তৈরির কার হলে প্রোফাইল সাজাতে হবে।

 

Eyeem থেকে মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার উপায়:

আপনি আপনার মোবাইলে তোলা ফটো এই সাইটে sell করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনার প্রতি সেল এ 50% টাকা পাবেন। বাকি 50% পাবে Eyeem । আর আপনার photo কতটা সেল হবে সেটা অনেকটা নির্ভর করে বায়ার এর লাইসেন্স এর উপর। এখানে license ও তার price একটা তালিকা দিচ্ছি।

বিভিন্ন ধরনের লাইসেন্স ও তার মূল্য:

  • Social license – একটা ছবিতে 20 ডলার
  • Web license – একটা ছবিতে 50 ডলার
  • কমার্শিয়াল license – একটা ছবিতে 250 ডলার

Eyeem সম্পর্কে বিস্তারিত:

আপনার যদি ফটোগ্রাফি করা শখ থাকে বা ক্যারিয়ার হিসেবে ফটোগ্রাফি করে নিতে চান তাহলে আপনার একটা ভালো কমিউনিটি খুব দরকার হবে। আপনি Eyeem এর প্রিমিয়ার Community তে যোগ দিতে পারেন।

আপনার ফটো তোলার স্কিল টা যদি আরো উন্নত করতে চান তাহলে এটা খুব জরুরী।

Mipic – মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয়

মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করে আয় করা খুব কঠিন হবে তবে অসম্ভব নয়। অন্য সব ওয়েবসাইট এর মতোই mipic এও ফটোগ্রাফি করে টাকা আয় করতে পারবেন। তবে এই ওয়েবসাইট অন্য সাইট থেকে একটু ভিন্ন কারণ এটা একটা প্রিন্ট এবং ডিমান্ড সাইট।

এটা একটা কাস্টম প্রিন্ট প্লাটফর্ম, যেখানে মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করার সুযোগ তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। টাকা আয় করতে পাইলে আপনি এই ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করুন।

অ্যাপ ইন্টারফেস:

একটা কষ্টের বিষয় হলো mipic এর Android অ্যাপ নেই। শুধুমাত্র ISO ব্যাবহার কারি app store থেকে এই অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন।

Android ব্যাবহার কারিরা ওয়েবসাইট থেকে ফটো আপলোড করতে পারবেন। অর্থাৎ অ্যাপ ডাউনলোড না করে mipic.co ওয়েবসাইট থেকে কাজ করতে হবে। প্রথম দিকে এটা ব্যবহার করা একটু কঠিন মনে হলেও পড়ে আস্তে আস্তে অভ্যাস হয়ে যাবে।

Mipic থেকে টাকা আয় করা

এই সাইট এ কাজ করে টাকা ইনকাম করা বেশ সহজ হবে। আপনার অবসই অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে হবে অথবা ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। এবং একটা একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

একাউন্ট তৈরি করার পরে payment সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে এই সাইটে কাজ শুরু করতে পারেন। আপনি যে কোন একটা ক্যাটাগরির পণ্য sell করার try করবেন। আপনি চাইলেই আপনার সেই পণ্য আপনি বিভিন্ন জায়গাতে শেয়ার করে sell বাড়াতে পারেন। আপনার personal blog, website অথবা social media ব্যাবহার করে আপনার পণ্য সবার সামনে নিয়ে আসতে পারেন। এক্ষেত্রেও আপনার বিক্রি করা প্রতিটা products এর ওয়েবসাইট 20% কমিশন পাবেন।

একাউন্ট তৈরি করা:

একাউন্ট তৈরি করার জন্য উপরের দিকে দেখবেন একটা অপশন আছে “sell” ওখানে ক্লিক করুন। এর পর email আর একটা username এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রার করে নিবেন।

এর পরে প্রোফাইল complete করে নিয়ে ফটো আপলোড করা শুরু করতে পারেন।

 

Mipic থেকে মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয়:

প্রথমে বলেছি যে এটা একটা অনলাইন print কোম্পানি। যখন কোন একটা products বিক্রি করা হয় তখন ঐ পণ্য manufacturing করা ফ্রেমে বাধাই করে বিশ্বের যে কোন দেশে পৌছে দেওয়ার কাজ করে এই কোম্পানি।

প্রতিটা ছবি বিক্রির পর তার মালিক 20% কমিশন পায়। একটা প্রোডাক্ট কতবার sell হবে সেটা আন্দাজ করা বেশ কঠিন কাজ।

যেসব ক্যাটাগরির পণ্য এই ওয়েবসাইটে sell করা যাবে তা হলো:

  • ফ্রেম প্রিন্ট
  • Acrylic Block
  • Face Mask
  • T- Shart
  • Phone case
  • Phone wallpaper
  • Canvas

আরো বেশ কিছু ক্যাটাগরির প্রোডাক্ট sell করতে পারেন।

 

Read More: গেম খেলে টাকা ইনকাম করার অ্যাপ

শেষ কথা:

এই আর্টিকেল মূলত মোবাইল ফটোগ্রাফি করে আয় করতে চাওয়া মানুষদের উদ্দেশ্য করে লেখা হয়েছে। আপনি যদি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন তাহলে একটু হলেও নতুন কিছু জানতে পেরেছেন বা শিখতে পেরেছেন।

যদি এমনই নতুন নতুন online taka income করার অ্যাপ বা ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমাদের এই Creative Bari ওয়েবসাইট bookmark করে রাখবেন। কোথাও কোন ভুল হলে ক্ষমা করে দিবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button